• স্টাইল ক্রেইজ (style craze) ফ্যাশন হাউজে নতুন ঈদ কালেকশন
  • ২০২০ সাল পর্যন্ত কর অব্যাহতি পাচ্ছে গ্রামীণ ব্যাংক
  • বিশেষ তহবিলে বিনিয়োগের সীমা বেঁধে দিল বাংলাদেশ ব্যাংক
  • ব্যাংকিং সেক্টরেও আছে দুষ্টু চক্র : এনবিআর চেয়ারম্যান
  • ৫ দিনব্যাপী ব্যাংকিং মেলা শুরু
  • এসএমই ঋণে সুদ হারের ব্যবধান সিঙ্গেলে রাখার নির্দেশ
  • বাংলাদেশ ব্যাংককে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের চিঠি:
  • বাংলা একাডেমিতে বসছে ব্যাংকিং মেলা
  • দুদক বেসিক ব্যাংকের নথিপত্র সংগ্রহে আদালতে যাবে
  • স্কুল ব্যাংকিংয়ে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণের নির্দেশ

অধিকাংশ ব্যাংকের মুনাফা বেড়েছে

all bank

ব্যাংক নিউজ২৪ডটকম: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত অধিকাংশ ব্যাংকের মুনাফা বেড়েছে। তালিকাভুক্ত ৩০ ব্যাংকের মধ্যে ১৯টি ব্যাংক চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকের (জানুয়ারি-মার্চ) আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। প্রতিবেদন অনুযায়ী ১৫ টি ব্যাংকের মুনাফা আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় বেড়েছে। আর মাত্র চারটি ব্যাংকের মুনাফা কমেছে।

ওয়ান ব্যাংক লিমিটেড: এ ব্যাংকের কর পরবর্তী সমন্বিত মুনাফা হয়েছে পাঁচ কোটি ১৩ লাখ টাকা ও শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে দশমিক ১১ টাকা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল যথাক্রমে দুই কোটি ৫৫ লাখ টাকা ও দশমিক ০৫ টাকা।

ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেড: প্রথম প্রান্তিকে ব্যাংকটির ইপিএস হয়েছে ২৫ পয়সা। আলোচিত সময়ে ব্যাংকের মুনাফা হয়েছে ৩৫ কোটি ৬৬ লাখ টাকা। তবে কোম্পানিটি আগের বছর একই সময়ে লোকসান ছিল ১৪ কোটি ২৯ লাখ টাকা এবং শেয়ার প্রতি লোকসান ১০ পয়সা।

সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক (এসআইবিএল): এ ব্যাংকের মুনাফা বেড়েছে ২৪ কোটি ৩৫ লাখ টাকা এবং ইপিএস বেড়েছে দশমিক ৩৫ টাকা। কর পরবর্তী মুনাফা ৩৬ কোটি ৫৭ লাখ টাকা এবং ইপিএস দশমিক ৫২ টাকা। যা আগের বছর একই সময়ে হয়েছিলো যথাক্রমে ১২ কোটি ২২ লাখ টাকা এবং দশমিক ১৭ টাকা।

ইসলামী ব্যাংক: প্রথম প্রান্তিকে মুনাফা হয়েছে ৩৮ কোটি ৪০ লাখ টাকা এবং ইপিএস দশমিক ২৬ টাকা, যা আগের বছর একই সময়ে হয়েছিলো যথাক্রমে ২৭ কোটি ৮২ লাখ টাকা এবং দশমিক ১৯ টাকা। অর্থাৎ আগের বছর একই সময় থেকে মুনাফা ১০ কোটি ৫৮ লাখ টাকা ও ইপিএস দশমিক ০৭ টাকা বেড়েছে ।

আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক: প্রথম প্রান্তিক শেষে ব্যাংকর্টি মুনাফার পরিমান ৪৮ কোটি ৮৩ লাখ টাকা ও ইপিএস দশমিক ৫২ টাকা, আগের বছর একই সময়ে লোকসান হয়েছিলো যথাক্রমে ২৫ কোটি ১২ লাখ টাকা ও দশমিক ২৭ টাকা।

রূপালী ব্যাংক: প্রথম প্রান্তিকে মুনাফা হয়েছে ২১ কোটি টাকা এবং ইপিএস ১ দশমিক ১৪ টাকা, যা আগের বছর একই সময়ে হয়েছিলো যথাক্রমে ১৬ কোটি ৮২ লাখ টাকা এবং দশমিক ৮৬ টাকা। অর্থাৎ আগের বছর একই সময় থেকে মুনাফা চার কোটি বেড়েছে।

ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক: প্রথম প্রান্তিকে মুনাফা হয়েছে নয় কোটি ৬১ লাখ টাকা এবং ইপিএস দশমিক ২৩ টাকা, যা আগের বছর একই সময়ে হয়েছিলো যথাক্রমে সাত কোটি ছয় লাখ টাকা এবং দশমিক ১৭ টাকা।

ইউনাইটেড কর্মাশিয়াল ব্যাংক: প্রথম প্রান্তিকে মুনাফা হয়েছে ৯৬ কোটি টাকা এবং ইপিএস ১ দশমিক ১৫ টাকা, যা আগের বছর একই সময়ে লোকসান হয়েছিলো যথাক্রমে ৯৯ কোটি এবং ১ দশমিক ২০ টাকা।

মিউচ্যুয়াল ট্রাষ্ট: প্রথম প্রান্তিকে মুনাফা হয়েছে ১৯ কোটি টাকা এবং ইপিএস দশমিক ৬৬ টাকা, যা আগের বছর একই সময়ে হয়েছিলো যথাক্রমে ১২ লাখ টাকা এবং দশমিক ০০৪ টাকা।

পূবালী ব্যাংক: এ ব্যাংকের মুনাফার পরিমাণ ৫৬ কোটি টাকা এবং ইপিএস দশমিক ৬৬ টাকা, যা আগের বছর একই সময়ে হয়েছিলো যথাক্রমে ৩১ কোটি টাকা এবং দশমিক ৩৭ টাকা।

যমুনা ব্যাংক: প্রথম প্রান্তিকে মুনাফা হয়েছে আট কোটি টাকা এবং ইপিএস দশমিক ১৮ টাকা, যা আগের বছর একই সময়ে হয়েছিলো যথাক্রমে পাঁচ কোটি টাকা এবং দশমিক ১১ টাকা।

ডাচ্ বাংলা: প্রথম প্রান্তিকে মুনাফা হয়েছে ৩৩ কোটি ৬৭ লাখ টাকা এবং ইপিএস ১ দশমিক ৬৮ টাকা, যা আগের বছর একই সময়ে হয়েছিলো যথাক্রমে ৩০ কোটি দুই লাখ টাকা এবং ১ দশমিক ৫০ টাকা।

ট্রাস্ট ব্যাংক: প্রথম প্রান্তিকে মুনাফা হয়েছে ২০ কোটি টাকা এবং ইপিএস দশমিক ৫৪ টাকা, যা আগের বছর একই সময়ে হয়েছিল যথাক্রমে ১২ কোটি টাকা এবং দশমিক ৩২ টাকা।

এবি ব্যাংক: প্রথম প্রান্তিকে মুনাফা হয়েছে ৪১ কোটি টাকা এবং ইপিএস দশমিক টাকা, যা আগের বছর একই সময়ে হয়েছিলো যথাক্রমে ২১ কোটি টাকা এবং দশমিক টাকা।

আইএফআইসি: এ ব্যাংকের মুনাফা অনেক বেড়েছে। প্রথম প্রান্তিকে মুনাফা হয়েছে ৪৪ কোটি টাকা। যা আগের বছর একই সময়ে হয়েছিলো পাঁচ কোটি টাকা।

মুনাফা কমে যাওয়া কোম্পানিগুলো হচ্ছে:

শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক: জানুয়ারি-মার্চ শেষে ব্যাংকটির কর পরবর্তী লোকসান ১৫ কোটি ৯৮ লাখ টাকা ও শেয়ার প্রতি লোকসান দশমিক ২৪ টাকা, আগের বছর একই সময়ে মুনাফা হয়েছিলো নয় কোটি ৮৪ লাখ টাকা ও ইপিএস হয়েছিলো দশমিক ১৫ টাকা।

স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক: প্রথম প্রান্তিকে মুনাফা হয়েছে ১৪ কোটি টাকা এবং ইপিএস দশমিক ২৪ টাকা, যা আগের বছর একই সময়ে হয়েছিলো যথাক্রমে ৩১ কোটি টাকা এবং দশমিক ৫৪ টাকা।

এক্সিম ব্যাংক: প্রথম প্রান্তিকে লোকসান হয়েছে ৮২ কোটি ৭২ লাখ টাকা এবং শেয়ার প্রতি লোকসান দশমিক ৭২ টাকা, যা আগের বছর একই সময়ে হয়েছিলো যথাক্রমে ৭৪ কোটি তিন লাখ টাকা এবং দশমিক ৬৪ টাকা।

এবারও লোকসানে আছে আইসিবি ইসলামী ব্যাংক

আইসিবি ইসলামীক ব্যাংক: প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির লোকসান আগের বছর একই সময় থেকে বেড়েছে। জানা গেছে, প্রথম প্রান্তিকে ব্যাংকটির কর পরবর্তী লোকসান দাঁড়িয়েছে ১৮ কোটি ৪০ লাখ টাকা ও শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে দশমিক ২৮ টাকা, যা আগের বছর একই সময়ে হয়েছিলো ৩৮ লাখ টাকা ও দশমিক ০০৬ টাকা।

এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক ম. মাহফুজুর রহমান বলেন, গত বছর রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে ব্যাংকগুলোর মুনাফা কমে যায়। এখন অস্থিরতা অনেক কেটে গেছে। এজন্য ব্যাংকগুলো আবার মুনাফায় ফিরেছে।

বিভাগ - : জাতীয়, ব্যাংক

কোন মন্তব্য নেই

মন্তব্য দিন