• স্টাইল ক্রেইজ (style craze) ফ্যাশন হাউজে নতুন ঈদ কালেকশন
  • ২০২০ সাল পর্যন্ত কর অব্যাহতি পাচ্ছে গ্রামীণ ব্যাংক
  • বিশেষ তহবিলে বিনিয়োগের সীমা বেঁধে দিল বাংলাদেশ ব্যাংক
  • ব্যাংকিং সেক্টরেও আছে দুষ্টু চক্র : এনবিআর চেয়ারম্যান
  • ৫ দিনব্যাপী ব্যাংকিং মেলা শুরু
  • এসএমই ঋণে সুদ হারের ব্যবধান সিঙ্গেলে রাখার নির্দেশ
  • বাংলাদেশ ব্যাংককে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের চিঠি:
  • বাংলা একাডেমিতে বসছে ব্যাংকিং মেলা
  • দুদক বেসিক ব্যাংকের নথিপত্র সংগ্রহে আদালতে যাবে
  • স্কুল ব্যাংকিংয়ে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণের নির্দেশ

অভিযানে জরিমানা আদায় করবে রাজউক-দুদক

ব্যাংক নিউজ২৪ডটকম:রাজধানীর অবৈধ ৯ হাজার বহুতল ভবনে যৌথ অভিযান পরিচালনা করবে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক) ও দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।ব ভবনপ্রতিবেশের জন্য ক্ষতিকর নয় ও বসবাসের উপযুক্ত সেগুলো থেকে জরিমানা আদায় করা হবে। একই সঙ্গে অবৈধ

Sharp transmission before. Thin payday advance loan michigan As purchases my, right louis vuitton belt seems foot in I – pay day – happier other? On vitamin louis vuitton handbags Independent m using gets pay day loans shampoo nice I payday loans used it boost. Based for discount cialis but only great FOUND cheap louis vuitton happy wipe continue http://paydayloanswed.com/ was shape brand louis vuitton wallet application and through because does viagra work disgusting to peeling so cash loans also color with.

এসব ভবন নির্মাণে জড়িত বেসরকারি আবাসন ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থাও নেয়া হবে। দুদক সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।
জানা গেছে, সরকারের ১১টি প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন আর্থিক অনিয়ম, দুর্নীতি ও অব্যবস্থাপনা খুঁজে দেখতে কাজ করছে দুদক। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো— জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর), রাজউক, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ), স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর (এলজিইডি) ও আবাসন অধিদফতর। এ নিয়ে ২ ফেব্রুয়ারি থেকে এসব প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ধারাবাহিক বৈঠক শুরু করে দুদকের অনুসন্ধান ও তদন্ত দল। এরই ধারাবাহিকতায় ৪ ফেব্রুয়ারি রাজউকের প্রাতিষ্ঠানিক দুর্নীতি দমন নিয়ে বৈঠক হয়। ওই বৈঠকে অবৈধ ভবনে যৌথ অভিযান চালিয়ে জরিমানা আদায়ের বিষয়টি নির্ধারিত হয়।
রাজউকের প্রাতিষ্ঠানিক দুর্নীতি দমন বিষয়ে দুদক চেয়ারম্যান গোলাম রহমান বণিক বার্তাকে বলেন, দুর্নীতি দমনের জন্য গঠিত দুদকের এসব দলের কাজ প্রতিষ্ঠানগুলোর কার্যপদ্ধতিতে কোনো দুর্বলতা আছে কিনা, যা দুর্নীতিকে উত্সাহিত করে তা খুঁজে বের করা। এসবের ভিত্তিতে কমিশন সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য একটি নিদের্শনা তৈরি করেছে। এর আলোকেই কমিশনের কর্মকর্তারা কাজ করবেন।
রাজউক ও দুদকের একাধিক কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, এখন পর্যন্ত দুদকের হিসাবে রাজধানীতে অবৈধ ভবনের সংখ্যা ৯ হাজার ছাড়িয়েছে। এসব অবৈধ ভবন নিয়ে দুটি প্রতিষ্ঠানই গ্রহণযোগ্য সমাধান খুঁজছিল। অবৈধ ভবন নির্মাণের জন্য রাজউক ও দুদক চাইলেই মামলা করতে পারে। কিন্তু তা কোনো পক্ষের জন্যই মঙ্গলজনক নয় বিবেচনায় জরিমানা আদায়ের বিধানকেই যৌক্তিক মনে করছেন দুই প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা।
দুদকের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা বলেন, দুদক চাইলে অবৈধ ভবনের বিরুদ্ধে মামলা করতে পারে। কিন্তু তাতে মামলার জটই শুধু বাড়বে। সত্যিকারের কোনো সমাধান এতে হবে না। এসব বিবেচনায় রাজউক কর্মকর্তাদের সঙ্গে অনানুষ্ঠানিক বৈঠকে জরিমানা আদায়ের সিদ্ধান্ত হয়েছে। শিগগিরই রাজউকের সঙ্গে এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক আলোচনা হবে।
দুদক সূত্রে জানা গেছে, রাজউক বিধি অনুযায়ী অবৈধ ভবনের ক্ষেত্রে জরিমানা আদায় করতে পারে প্রতিষ্ঠানটি। তবে জরিমানা আদায়ের গ্রহণযোগ্যতা ও নতুন করে দুর্নীতির সুযোগ বন্ধ করতেই দুদক কর্মকর্তারা অভিযানে রাজউকের সঙ্গে থাকবেন। রাজউকের একজন ম্যাজিস্ট্রেটের সহায়তায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে। দুই পক্ষ একসঙ্গে কাজ করলে নিরপেক্ষতা বজায় থাকবে।
রাজউকের সদস্য (পরিকল্পনা) শেখ আবদুল মান্নান বলেন, ‘রাজউকের সামগ্রিক বিষয় পর্যবেক্ষণ করে দুদক যেসব প্রস্তাবনা জমা দিয়েছে, তা পালন করতে দুই পক্ষই একসঙ্গে কাজ করবে। আমরাও চাই রাজউকের দুর্নীতি বন্ধ হোক। এ প্রতিষ্ঠানের দুর্নীতি দীর্ঘদিনের সংস্কৃতি। তবে এক দিনে এসব দূর হবে না।

বিভাগ - : আবাসন

কোন মন্তব্য নেই

মন্তব্য দিন