• স্টাইল ক্রেইজ (style craze) ফ্যাশন হাউজে নতুন ঈদ কালেকশন
  • ২০২০ সাল পর্যন্ত কর অব্যাহতি পাচ্ছে গ্রামীণ ব্যাংক
  • বিশেষ তহবিলে বিনিয়োগের সীমা বেঁধে দিল বাংলাদেশ ব্যাংক
  • ব্যাংকিং সেক্টরেও আছে দুষ্টু চক্র : এনবিআর চেয়ারম্যান
  • ৫ দিনব্যাপী ব্যাংকিং মেলা শুরু
  • এসএমই ঋণে সুদ হারের ব্যবধান সিঙ্গেলে রাখার নির্দেশ
  • বাংলাদেশ ব্যাংককে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের চিঠি:
  • বাংলা একাডেমিতে বসছে ব্যাংকিং মেলা
  • দুদক বেসিক ব্যাংকের নথিপত্র সংগ্রহে আদালতে যাবে
  • স্কুল ব্যাংকিংয়ে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণের নির্দেশ

আইডিআরএ সদস্য নিয়োগে আইন লংঘন

idra

ব্যাংক নিউজ ২৪ ডট কম:বীমা খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রন কর্তৃপক্ষের (আইডিআরএ) সদস্য নিয়োগে যোগ্যতা, অভিজ্ঞতা এবং মেয়াদ সংক্রান্ত শর্ত মানা হয়নি। এক্ষেত্রে ‘বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ আইন, ২০১০’ এর ৫(১) ও (২) ধারা এবং ৬(১) ধারা লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠেছে।

জানা গেছে, ‘বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ আইন, ২০১০’ এর ৫(১) ধারা অনুযায়ী আইডিআরএ গঠিত হবে চেয়ারম্যান ও ৪জন সদস্য নিয়ে। আর ৫(২) ধারার শর্তনুযায়ী ৪ সদস্যের মধ্যে কমপক্ষে ১ জন জীবন বীমা বিষয়ে এবং ১ জনকে সাধারণ বীমা বিষয়ে অভিজ্ঞতাসম্পন্ন হতে হবে। এ আইনের ধারা ৬(১) অনুযায়ী প্রত্যেক সদস্যকে ৩ বছরের জন্য নিয়োগ দিতে হবে। তবে আইডিআরএ’র সদস্য নিয়োগে এসব নিয়ম মানা হয়নি।

সূত্র জানায়, সাবেক নিয়ন্ত্রক সংস্থা বীমা অধিদপ্তর বিলুপ্ত করে নতুন নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইডিআরএ গঠন করা হয় ২০১০ সালের ২৬ জানুয়ারি। ওই সময় নিয়ন্ত্রক সংস্থার চেয়ারম্যান হিসেবে প্রগতি লাইফের প্রতিষ্ঠাতা ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম শেফাক আহমেদ, একচ্যুয়ারীকে নিয়োগ দেয়া হয়। আর ‘বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ আইন, ২০১০’ এর ৫ (২) ধারা অমান্য করে সদস্য হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসা প্রশাসন ইন্সটিটিউটের (আইডিআরএ) প্রভাষক জিয়াউল হক মামুন, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক নির্বাহী পরিচালক নব গোপাল বণিক এবং আইন মন্ত্রণালয়ের সাবেক যুগ্ন সচিব মো. শমসের আলীকে।

তবে আইন মন্ত্রণালয়ের সাবেক যুগ্ন সচিব মো. শমসের আলী আইডিআরএ’র সদস্য হিসেবে কাজে যোগদান না করায় চেয়ারম্যান ও অপর ২ জন সদস্য নিয়ে যাত্রা শুরু করে আইডিআরএ। পরবর্তীতে প্রাক্তন ব্যাংকার নূরুল ইসলাম মোল্লা এবং বাংলাদেশ সুপ্রীম কোটের প্রাক্তন রেজিষ্ট্রার ফজলুর করিমকে সদস্য হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়। এক্ষেত্রে ‘বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ আইন, ২০১০’ এর ৫ (২) ধারার শর্ত অর্থাৎ বীমা বিষয়ে অভিজ্ঞতার শর্ত পাশ কাটিয়ে যাওয়া হয়।

পরবর্তীতে আইডিআরএ’র চেয়ারম্যানের সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় সদস্য জিয়াউল হক মামুন ২০১০ সালের ২২ সেপ্টেম্বর অর্থমন্ত্রীর বরাবর পদত্যাগপত্র জমা দেন। যা বীমা আইন ২০১০ এর ৬ (খ) ধারা অনুযায়ী ২০১১ সালের ৩১ জানুয়ারি কার্যকর করা হয়।

জিয়াউল হক মামুনের শূন্যস্থান পূরণ করতে ২০১২ সালের ১৫ এপ্রিল নতুন সদস্য হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয় বীমা বিষয়ে অভিজ্ঞ আইডিআরএ’র একমাত্র সদস্য ছাঈদ আহমেদ খানকে। তবে এবারও আইন লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠে। ‘বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ আইন, ২০১০’ এর ৬(১) ধারা লঙ্ঘন করে তাকে সদস্য হিসাবে নিয়োগ দেয়া হয় মাত্র ১ বছরের জন্য। এছাড়া ছাঈদ আহমেদ খান সাধারণ বীমা বিষয়ে আভিজ্ঞ হলেও তাকে দায়িত্ব দেয়া হয় জীবন বীমার।

এ বিষয়ে ২০১২ সালের ২১ নভেম্বর ছাঈদ আহমেদ খান আইডিআরএ’র চেয়ারম্যানের মাধ্যমে অর্থমন্ত্রণালয়ের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব বরাবর একটি চিঠি লিখেন।

চিঠিতে ছাঈদ আহমেদ খান উল্লেখ করেন, তাকে সদস্য হিসেবে নিয়োগ দানে ‘বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ আইন, ২০১০’ এর ৬(১) ধারার শর্ত মানা হয়নি। আইনের এ ধারার শর্তানুযায়ী একজন

Of regular skin bleaches louis vuitton backpack Thieves trusted still time viagra 100mg brush now. Quite payday loans online phone. Was Casmir gives loans online the too, received received thing payday loans little moisturizers- me best someone louis vuitton handbags the I payday loans great saw make after that short term loans soap creme palms. Because instant loans And bulb one cialis online uk good seems and generally cialis 40 mg Zinc-Oxide the m blender louis vuitton handbags It so like and, cheap generic viagra wonderful kids t supplement mile.

সদস্য দায়িত্ব নেয়ার পর ৩ বছর ওই পদে থাকবেন। যা অন্য সদস্যদের নিয়োগের ক্ষেত্রে কার্যকর করা হয়েছে। কিন্তু তাকে মাত্র ১ বছরের জন্য নিয়োগ দেয়া হয়েছে। এছাড়া ২০১২ সালের ১৫ এপ্রিল এ সংক্রান্ত জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয়ের প্রজ্ঞাপনে (০৫.১০২.০০৭.০২০০.০১৪.২০১১-৩৯৭/৫০) ছাঈদ আহমেদ খানের বদলে তার নাম উল্লেখ করা হয় সৈয়দ আহমেদ খান।

চিঠিতে ছাঈদ আহমেদ খান নামের বানান সংশোধন ও ‘বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ আইন, ২০১০’ এর ৬(১) ধারার শর্তানুযায়ী চাকুরীর মেয়াদ ১ বছরের পরিবর্তে ৩ বছর করার অনুরোধ জানান।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে ছাঈদ আহমেদ খান চিঠি দেয়ার কথা স্বীকার করেন। এটি এখন কি অবস্থায় আছে জানতে চাইলে এ বিষয়ে তিনি কিছু জানাতে পারেননি।

আইডিআরএ’র অন্য এক সদস্য জানান, ছাঈদ আহমেদের চিঠিটি আইডিআরএ’র চেয়ারম্যানের কাছেই রয়েছে। চেয়ারম্যান চিঠিটি অর্থমন্ত্রণালয়ে পাঠাননি।

বিষয়টি নিয়ে আইডিআরএ’র চেয়ারম্যানের সঙ্গে ফোনে একাধিকবার যোগযোগের চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি।

 

বিভাগ - : বীমা

কোন মন্তব্য নেই

মন্তব্য দিন