• স্টাইল ক্রেইজ (style craze) ফ্যাশন হাউজে নতুন ঈদ কালেকশন
  • ২০২০ সাল পর্যন্ত কর অব্যাহতি পাচ্ছে গ্রামীণ ব্যাংক
  • বিশেষ তহবিলে বিনিয়োগের সীমা বেঁধে দিল বাংলাদেশ ব্যাংক
  • ব্যাংকিং সেক্টরেও আছে দুষ্টু চক্র : এনবিআর চেয়ারম্যান
  • ৫ দিনব্যাপী ব্যাংকিং মেলা শুরু
  • এসএমই ঋণে সুদ হারের ব্যবধান সিঙ্গেলে রাখার নির্দেশ
  • বাংলাদেশ ব্যাংককে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের চিঠি:
  • বাংলা একাডেমিতে বসছে ব্যাংকিং মেলা
  • দুদক বেসিক ব্যাংকের নথিপত্র সংগ্রহে আদালতে যাবে
  • স্কুল ব্যাংকিংয়ে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণের নির্দেশ

আগের অর্থবছরের তুলনায় ব্যাংকের শিল্প ঋণ বিতরণ বেড়েছে

bank
ব্যাংক নিউজ ২৪ ডট কমঃ ২০১৪-১৫ অর্থবছরে বাংলাদেশের ব্যাংকগুলো আগের অর্থবছরের তুলনায় ৩০ দশমিক ২৩ শতাংশ বেশি শিল্প ঋণ বিতরণ করেছে। শিল্প ঋণ বিষয়ক বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, বিদায়ী অর্থবছরে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো শিল্প খাতে মোট ২ লাখ ১৯ হাজার ৩৩০ কোটি টাকার ঋণ বিতরণ করেছে।২০১৩-১৪ সালের তুলনায় তা ৫১ হাজার কোটি টাকা বেশি। ওই বছর ১ লাখ ৬৯ হাজার কোটি টাকার শিল্প ঋণ বিতরণ হয়েছিল। তৈরি পোশাক শিল্প কারখানার আধুনিকায়নের কারণে শিল্প খাতে ঋণ বিতরণ বেড়েছে বলে মনে করেন বেসরকারি এঙ্মি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মাদ হায়দার আলী মিঞা।তিনি গণমাধ্যমকে বলেন,এ খাতের কমপ্লায়েন্স নিশ্চিত করতে বা আন্তর্জাতিক বাজারের চাহিদা মেটাতে গ্রিন ফ্যাক্টরি বা ইকো ফ্যাক্টরি (পরিবেশবান্ধব শিল্প ব্যবস্থা) করা এখন জরুরি হয়ে পড়েছে। এজন্য নতুন নতুন মেশিনারিজ আমদানি করতে হচ্ছে উদ্যোক্তাদের। এজন্য এই খাতের উদ্যোক্তারা নতুন নতুন ঋণ নিচ্ছেন। অনেকে কারখানার কার্যক্রম বাড়ানোর জন্যও ঋণ নিচ্ছেন। রাজনৈতিক পরিস্থিতি শান্ত থাকায় ব্যবসায়ী ও উদ্যোক্তারা বিনিয়োগে ঝুঁকছেন বলে ইঙ্গিত মিলছে বলে মনে করেন তিনি। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৪-১৫ অর্থবছরে বড় শিল্পে ১ লাখ ৬৬ হাজার ৮৫১ কোটি টাকা ঋণ বিতরণ করা হয়েছে, যা মোট শিল্প ঋণের ৭৬ শতাংশ।আগের অর্থবছর বড় শিল্পে ১ লাখ ১৭ হাজার ৯৯৩ কোটি টাকা ঋণ বিতরণ হয়েছিল, যা ছিল ওই বছরে বিতরণ করা ঋণের ৭০ ভাগ। বিদায়ী অর্থবছর মাঝারি শিল্পে ৩৪ হাজার ৯৮৮ কোটি টাকার ঋণ বিতরণ হয়েছে। আগের অর্থবছরের তুলনায় যা ৫ দশমিক ১২ শতাংশ কম। আর ক্ষুদ্র শিল্পে বিতরণ করা হয়েছে ১৭ হাজার ৪৯১ কোটি টাকা, যা আগের অর্থবছরের তুলনায় ২৯ দশমিক ১৩ শতাংশ বেশি। ২০১৪-১৫ অর্থবছরে বড় ও ক্ষুদ্র শিল্পে ঋণ বিতরণ বাড়লেও কমেছে মাঝারি শিল্পে।প্রতিবেদন বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, ২০১৪-১৫ অর্থবছর রাষ্ট্রীয় মালিকানার ব্যাংকগুলো শিল্প খাতে ৫ হাজার ৬৬ কোটি টাকার ঋণ বিতরণ করেছে। আগের অর্থবছর বিতরণ করা হয় ৩ হাজার ৫১৭ কোটি টাকা।বিশেষায়িত ব্যাংকগুলো শিল্প খাতে ২ হাজার ৯৩৪ কোটি টাকা ঋণ বিতরণ করেছে। আগের অর্থবছর বিতরণের পরিমাণ ছিল ৪ হাজার ২২৩ কোটি টাকা। এতে ব্যাংকগুলোর বিতরণ কমেছে ৩০ দশমিক ৬৬ শতাংশ। বেসিক ব্যাংককে বিশেষায়িত ব্যাংক থেকে বের করে বাণিজ্যিক ব্যাংকের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করায় এ খাতের ব্যাংকের বিতরণ কম দেখা যাচ্ছে।বেসরকারি খাতের ব্যাংকগুলো গত অর্থবছর এক লাখ ৭১ হাজার ৩১৫ কোটি টাকার শিল্প ঋণ বিতরণ করেছে। আগের অর্থবছর এসব ব্যাংকের বিতরণ করা ১ লাখ ৩৪ হাজার ১৫৪ কোটি টাকার তুলনায় যা ২৭ দশমিক ৭০ শতাংশ বেশি।বিদেশি মালিকানার ব্যাংকগুলো শিল্প খাতে ২৯ হাজার ৪৯ কোটি টাকা ঋণ দিয়েছে। আগের বছর বিতরণ হওয়া ১৮ হাজার ৯৫৬ কোটি টাকার তুলনায় যা ৫৩ দশমিক ১২ শতাংশ বেশি। আর ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো ২০১৪-১৫ অর্থবছরে ১০ হাজার ৯৬৫ কোটি টাকার ঋণ বিতরণ করেছে। আগের অর্থবছরে বিতরণ করা ৭ হাজার ৫৫ কোটি টাকার তুলনায় যা ৪৫ দশমিক ১২ শতাংশ বেশি।পাঁচ বছর মেয়াদি পরিকল্পনা : পাঁচ বছর মেয়াদি দ্বিতীয় কৌশলগত পরিকল্পনা (২০১৫-২০১৯) ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।অন্তর্ভুক্তিমূলক প্রবৃদ্ধি ও মূল্য স্থিতিশীলতা নিশ্চিত করতে বিচক্ষণ মুদ্রানীতি গ্রহণ, রেগুলেটরি ও নজরদারি কাঠামো আরও জোরদার করার বিষয়ে গুরুত্ব দিয়ে এই কৌশলগত পরিকল্পনা প্রণয়ন করা হয়েছে বলে জানান গভর্নর আতিউর রহমান। পাশাপাশি টেকসই উন্নয়নের জন্য সামাজিক দায়বোধ প্রণোদিত এবং পরিবেশবান্ধব অর্থায়নের ওপরও গুরুত্ব দেয়া হয়েছে।

বিভাগ - : ব্যাংক

কোন মন্তব্য নেই

মন্তব্য দিন