• স্টাইল ক্রেইজ (style craze) ফ্যাশন হাউজে নতুন ঈদ কালেকশন
  • ২০২০ সাল পর্যন্ত কর অব্যাহতি পাচ্ছে গ্রামীণ ব্যাংক
  • বিশেষ তহবিলে বিনিয়োগের সীমা বেঁধে দিল বাংলাদেশ ব্যাংক
  • ব্যাংকিং সেক্টরেও আছে দুষ্টু চক্র : এনবিআর চেয়ারম্যান
  • ৫ দিনব্যাপী ব্যাংকিং মেলা শুরু
  • এসএমই ঋণে সুদ হারের ব্যবধান সিঙ্গেলে রাখার নির্দেশ
  • বাংলাদেশ ব্যাংককে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের চিঠি:
  • বাংলা একাডেমিতে বসছে ব্যাংকিং মেলা
  • দুদক বেসিক ব্যাংকের নথিপত্র সংগ্রহে আদালতে যাবে
  • স্কুল ব্যাংকিংয়ে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণের নির্দেশ

কুরবানির ঈদে জালটাকা রোধে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নানা উদ্যোগ

money
ব্যাংক নিউজ ২৪ ডট কমঃ প্রথমবার জালনোট প্রচলন রোধে নেয়া প্রস্তুতি আনুষ্ঠানিকভাবে জানানোর উদ্যোগ, জামিনে থাকা জালনোট কারবারিদের ওপরে বিশেষ নজরদারির অনুরোধ, গাবতলী পশুর হাটে পাঁচটি ব্যাংকের জালনোট যাচাই সেবা। চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে। এ উৎসবকে কেন্দ্র করে রাজধানীসহ সারা দেশে কুরবানি পশুর হাটগুলোতে কেনাবেচায় জমে উঠবে। শুধু রাজধানীতে ১৬টি স্থানে হাট বসবে। আগামী মাসে অনুষ্ঠিত হবে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। বড় দুই উৎসবকে সামনে রেখে তৎপর জালটাকার কারবারিরা। এবারের দুই উৎসবে বাজারে জালটাকার কারবারিদের দৌরাত্ম্য ঠেকাতে বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক। আর এ উপলক্ষে এবারই প্রথম জালনোট প্রচলন রোধে নেয়া প্রস্তুতির কথা আনুষ্ঠানিকভাবে জানানোর উদ্যোগ নিচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক। আজ মঙ্গলবার এ বিষয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে। ন সুলতানা, শুভঙ্কর সাহাসহ কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কারেন্সি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক শুভঙ্কর সাহা বলেন, পশু কেনাবেচা বা অন্য যে কোনো লেনদেনে সাধারণ মানুষ যাতে প্রতারণার শিকার না হয়, সে জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে নানা প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। আমরা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের মাঠে থাকতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং সব টিভি চ্যানেলে প্রাইম টাইমে আসল নোটের ওপর ভিডিওচিত্র প্রচারে তথ্যমন্ত্রণালয়কে অনুরোধ করেছি। বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে ঈদ-পূর্ববর্তী রাত পর্যন্ত নিরবচ্ছিন্নভাবে পশুর হাটে জালনোট যাচাই সেবা প্রদানের নির্দেশনা দিয়েছি। এ ছাড়া ব্যাংকগুলোকে ব্যাংকিং কর্মদিবস চলাকালীনও টিভি মনিটরে আসল নোটের ভিডিওচিত্র প্রচারের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। ব্যাংকিং লেনদেন ও এটিএম বুথে টাকা ঢোকানোর আগে জালনোট শনাক্তকরণ মেশিন ব্যবহার করতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি বাস ও লঞ্চ টার্মিনাল, রেলস্টেশনসহ জনবহুল স্থানে আসল নোটের ফেস্টুন সংবলিত স্টিকার লাগানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে। সারা দেশের ইউনিয়ন পর্যায়েও একই ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

এবারের পশুর হাটগুলোয় নতুন-পুরনো মিলে প্রায় এক হাজার জালনোট শনাক্তকারী মেশিন নিয়ে সতর্ক অবস্থানে থাকবেন বিভিন্ন ব্যাংক ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। এ ছাড়া দেশের বিভিন্ন স্থানে জালনোট প্রতিরোধে সচেতনাতামূলক ভিডিও প্রদর্শন, গণমাধ্যমগুলোতে বিজ্ঞাপন ও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে প্রচারণা চালানো হবে। এদিকে জামিনে থাকা জালনোট কারবারিদের ওপরে বিশেষ নজর রাখতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে অনুরোধ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক সূত্রে জানা গেছে, এবার রাজধানীতে বৈধ পশুর হাট বসছে ২২টি। এর মধ্যে রয়েছে দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন ১০টি, উত্তর সিটি কর্পোরেশনের আওতাধীন ৬টি ও জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের আওতাধীন ৬টি পশুর হাট। এসব হাটে জালনোট যাচাই সেবা প্রদানের জন্য মোট ৩৯টি বাণিজ্যিক ব্যাংককে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। একটি হাটে কমপক্ষে দুটি ব্যাংক এই সেবা দেবে। তবে গাবতলী পশুর হাট বড় হওয়ায় পাঁচটি ব্যাংকের জালনোট যাচাই সেবা থাকবে। বিভাগীয় শহর, জেলা, উপজেলা, থানা এবং ইউনিয়ন পর্যায়েও অনুমোদিত পশুর হাটে ব্যাংকের উদ্যোগে জালনোট যাচাই সেবা দেয়া হবে।

এবার আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চাহিদা অনুযায়ী রাজধানীসহ সারা দেশের পশুর হাটগুলোতে মোট ৪৬০টি জালনোট শনাক্তকরণ মেশিন দিচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এর মধ্যে রাজধানীর পশুর হাটে চাহিদা অনুযায়ী ডিএমপি, র‌্যাব ও বিজিবিকে দেয়া হবে ১৮০টি। আর রাজধানীর বাইরের পশুর হাটে ব্যবহারের জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে বিভাগীয় শাখা অফিসের মাধ্যমে সরবরাহ করা হবে ২৮০টি।

বিভাগ - : ব্যাংক

কোন মন্তব্য নেই

মন্তব্য দিন