• স্টাইল ক্রেইজ (style craze) ফ্যাশন হাউজে নতুন ঈদ কালেকশন
  • ২০২০ সাল পর্যন্ত কর অব্যাহতি পাচ্ছে গ্রামীণ ব্যাংক
  • বিশেষ তহবিলে বিনিয়োগের সীমা বেঁধে দিল বাংলাদেশ ব্যাংক
  • ব্যাংকিং সেক্টরেও আছে দুষ্টু চক্র : এনবিআর চেয়ারম্যান
  • ৫ দিনব্যাপী ব্যাংকিং মেলা শুরু
  • এসএমই ঋণে সুদ হারের ব্যবধান সিঙ্গেলে রাখার নির্দেশ
  • বাংলাদেশ ব্যাংককে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের চিঠি:
  • বাংলা একাডেমিতে বসছে ব্যাংকিং মেলা
  • দুদক বেসিক ব্যাংকের নথিপত্র সংগ্রহে আদালতে যাবে
  • স্কুল ব্যাংকিংয়ে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণের নির্দেশ

‘ছিনতাইকারীর’ সঙ্গে গোলাগুলি, তিন পুলিশ আহত

বার্তা ৭১ ডট কমঃ গাজীপুরে র‌্যাবের পোশাক পরা একদল ‘ছিনতাইকারীর’ সঙ্গে গোলাগুলিতে তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।

বুধবার বিকালে টঙ্গী-ঘোড়াশাল সড়কে মীরের বাজারের তালটিয়ায় এ গোলাগুলির পর তিন ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

গ্রেপ্তার হয়েছেন ভোলা জেলার বাপতা গ্রামের খোরশেদ আলমের ছেলে শাহজাহান মিয়া (৩৫), কুমিল্লার তিতাস থানার দক্ষিণ নারিন্দা গ্রামের প্রয়াত আব্দুল রউফের ছেলে রফিকুল ইসলাম ( ৩৫) ও পটুয়াখালীর বরুণবাড়িয়ার প্রয়াত সেকেন্দার আলীর ছেলে শাহ আলম (৩০)।

বিকালে গাজীপুর পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে তাদের সাংবাদিকদের সামনে হাজির করা হয়।

গাজীপুর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) ওসি এম এ খায়ের সাংবাদিকদের বলেন, গোপন সংবাদ পেয়ে পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে একটি দল মীরের বাজার তালটিয়া এলাকায় অবরোধ দিয়ে ছিনতাইকারীদের বহনকারী একটি মাইক্রোবাস থামানোর চেষ্টা করে।

এসময় মাইক্রোবাসে থাকা ছিনতাইকারীরা পুলিশের দিকে ৬ রাউন্ড গুলি ছোড়ে। পুলিশও পাল্টা ১২ রাউন্ড গুলি ছোড়ে।

পরে পায়ে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় শাহজাহানসহ দুই ছিনতাইকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়। বাকি তিন ছিনতাইকারী পালিয়ে যায় বলে জানান ওসি।

তাদের কাছ থেকে ৫ রাউন্ড রাইফেলের তাজা গুলি, ৪ সেট হাতকড়া, চারটি মোবাইল ফোন সেট, একটি ওয়াকিটকি, চারটি র‌্যাবের পোশাক এবং একটি মাইক্রোবাস উদ্ধার করা হয়।

তাদের ধরার সময় ধাস্তাধস্তিতে ডিবি পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) সজীব দত্ত, এসআই আব্দুস সালাম ও এসআই জহিরুল ইসলাম আহত হন।

পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে গ্রেপ্তারকৃত শাহজাহান সাংবাদিকদের বলেন, আগে তিনি ঢাকা-গাজীপুর সড়কে বলাকা সার্ভিসের বাসের চালক ছিলেন। সম্প্রতি ছিনতাইয়ের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন।

রফিকুল ইসলাম ছিলেন নারায়ণগঞ্জের আদমজী এলাকায় একটি পোশাক কারখানার শ্রমিক। আর শাহ আলম ঢাকার গাওসিয়া মার্কেটে বড় ভাইয়ের চায়ের দোকানে কাজ করতেন বলে জানান।

বিভাগ - : সাক্ষাৎকার

কোন মন্তব্য নেই

মন্তব্য দিন