• স্টাইল ক্রেইজ (style craze) ফ্যাশন হাউজে নতুন ঈদ কালেকশন
  • ২০২০ সাল পর্যন্ত কর অব্যাহতি পাচ্ছে গ্রামীণ ব্যাংক
  • বিশেষ তহবিলে বিনিয়োগের সীমা বেঁধে দিল বাংলাদেশ ব্যাংক
  • ব্যাংকিং সেক্টরেও আছে দুষ্টু চক্র : এনবিআর চেয়ারম্যান
  • ৫ দিনব্যাপী ব্যাংকিং মেলা শুরু
  • এসএমই ঋণে সুদ হারের ব্যবধান সিঙ্গেলে রাখার নির্দেশ
  • বাংলাদেশ ব্যাংককে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের চিঠি:
  • বাংলা একাডেমিতে বসছে ব্যাংকিং মেলা
  • দুদক বেসিক ব্যাংকের নথিপত্র সংগ্রহে আদালতে যাবে
  • স্কুল ব্যাংকিংয়ে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণের নির্দেশ

জাপান বাংলাদেশকে ৬০০ কোটি ইয়েন আর্থিক সহায়তা দেবে

japan
ব্যাংক নিউজ ২৪ ডট কমঃ অবকাঠামোগত উন্নয়ন এবং বে অফ বেঙ্গল ইন্ডাস্ট্রিয়াল গ্রোথ বেল্ট (বিগ-বি) প্রচেষ্টাকে উৎসাহিত করতে বাংলাদেশকে ৬০০ কোটি বা ৬ বিলিয়ন ইয়েন আর্থিক সহায়তা প্রদান করবে জাপান।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে জাপানের পার্লামেন্টারি ভাইস-মিনিস্টার অফ ইকোনমি, ট্রেড অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি ইয়োশিহিরো সেরি -এর নেতৃত্বে ২৭ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আতিউর রহমানের সঙ্গে বৈঠক করেন।

বৈঠকে বাংলাদেশ ও জাপানের দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য এবং বিনিয়োগ সম্পর্কিত বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। এ সময় বাংলাদেশকে আর্থিক সহায়তা দেওয়া আশ্বাস দেন ইয়োশিহিরো সেরি।

বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর, উপদেষ্টা এবং ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় জাপানি মিনিস্টার বলেন, আগামী চার-পাঁচ বছরে পর্যায়ক্রমে এ আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হবে। এছাড়া ট্রেনিং এবং স্কলারশীপের মাধ্যমে বাংলাদেশের মানবসম্পদ উন্নয়নে জাপানের চলমান সহায়তা আরও বাড়ানো হবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর জাপান সরকারকে আশ্বস্ত করে বলেন, বাংলাদেশে বিদ্যমান তাদের সব ও নতুন বিনিয়োগ নিরাপদ ও লাভজনক হবে।

তিনি বলেন, জাপানি বিনিয়োগকে উৎসাহিত করতে ইতোমধ্যে সরকার চট্টগ্রামে বিশেষ অর্থনৈতিক এলাকা (এসইজেড) গড়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। আর এসইজেড-এ বিনিয়োগকারীদের জন্য একগুচ্ছ প্রণোদনা বিশেষ করে নির্দিষ্ট সময়ভিত্তিক সম্পূর্ণ বা আংশিক কর, ভ্যাট ও স্ট্যাম্প মাসূল রেয়াত দেওয়ার কথাও ভাবছে সরকার।

বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষ থেকে জাপানি বিনিয়োগকারীদের বাংলাদেশে বিনিয়োগ কর্মকাণ্ডে সব ধরনের সুবিধা প্রদানের নিশ্চয়তা দিয়ে গভর্নর আরও বলেন, সরাসরি বিদেশি বিনিয়োগের (এফডিআই) ক্ষেত্রে আমাদের নীতিভঙ্গি এবং বৈদেশিক পোর্টফলিও বিনিয়োগের (এফপিআই) আন্তঃপ্রবাহ দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ সবচেয়ে উদার।

তিনি আরও বলেন, বৈদেশিক মালিকানাধীন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো এখন দেশীয় মালিকানা প্রতিষ্ঠানের মতোই স্থানীয় ও বৈদেশিক উৎসের অর্থায়ন সুবিধা ভোগ করতে পারছে। এমনকি তাদের মূল প্রতিষ্ঠান থেকে বিনাসুদে ধার গ্রহণের ক্ষেত্রে এখন তাদের আগে অনুমোদনের প্রয়োজন হয় না। এ সময় গভর্নর আশা প্রকাশ করে বলেন, আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উচ্চ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করতে জাপান সবসময় গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার হিসেবে সহায়তা করবে।

বিভাগ - : ব্যাংক

কোন মন্তব্য নেই

মন্তব্য দিন