• ২০২০ সাল পর্যন্ত কর অব্যাহতি পাচ্ছে গ্রামীণ ব্যাংক
  • বিশেষ তহবিলে বিনিয়োগের সীমা বেঁধে দিল বাংলাদেশ ব্যাংক
  • ব্যাংকিং সেক্টরেও আছে দুষ্টু চক্র : এনবিআর চেয়ারম্যান
  • ৫ দিনব্যাপী ব্যাংকিং মেলা শুরু
  • এসএমই ঋণে সুদ হারের ব্যবধান সিঙ্গেলে রাখার নির্দেশ
  • বাংলাদেশ ব্যাংককে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের চিঠি:
  • বাংলা একাডেমিতে বসছে ব্যাংকিং মেলা
  • দুদক বেসিক ব্যাংকের নথিপত্র সংগ্রহে আদালতে যাবে
  • স্কুল ব্যাংকিংয়ে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণের নির্দেশ
  • সাবেক ছিটমহলবাসীদের স্যানিটেশন সুবিধা প্রদান পূবালী ব্যাংকের

নতুন নাগরিকদের উন্নয়নে ৫৬ ব্যাংককে দায়িত্ব দিলেন গভর্নর

atiur
ব্যাংক নিউজ ২৪ ডট কমঃ অধুনা বিলুপ্ত ছিটমহলের মানুষ অন্যান্য সেবার মতো ব্যাংকিং সেবা থেকেও বঞ্চিত ছিলেন। এসব মানুষকে সেবা দিতে দেশের ৫৬ ব্যাংককে দায়িত্ব দিলেন বাংলাদেশ ব্যাংক প্রধান গভর্নর ড. আতিউর রহমান। প্রত্যন্ত অঞ্চলে গিয়ে সেবার প্রতিশ্রুতিও দিয়েছে দেশের সব ব্যাংক।
রোববার সমগ্র ব্যাংকিং পরিবার নিয়ে পঞ্চগড়ের দহলা খাগড়াবাড়ী পরিদর্শন করেন গভর্নর। এখানে ঋণ বিতরণ, ১০ টাকার হিসাব খোলা এবং সিএসআর খাত থেকে অর্থ দিয়েছে ব্যাংকগুলো। আনুষ্ঠানিকভাবে এসব কার্যক্রমের উদ্বোধন করেছেন ড. আতিউর রহমান।
এ অঞ্চলে মানুষের মাঝে ঋণ ও সিএসআর হিসেবে আড়াই কোটি টাকা বিতরণ করেছে ৩৮ ব্যাংক। সামাজিক দায়বদ্ধতা বা সিএসআর কর্মসূচির আওতায় দেশের ৪৫টি ব্যাংক ওই এলাকায় ৩৩৪টি নলকূপ, ১৯২টি স্যানিটারি ল্যাট্রিন, ১০টি স্প্রে মেশিন, বিপুল পরিমাণ ওষুধ এবং শিক্ষা কার্যক্রমের আধুনিকায়নে ১৯টি কম্পিউটার, ১৩শ’টি স্কুল ব্যাগ, ৪২ লাখ টাকা ব্যয়ে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় ভবন নির্মাণ, ১৫ লাখ ৫০ হাজার টাকা ব্যয়ে শিক্ষা বৃত্তি প্রদান, ১০০টি স্কুল বেঞ্চ, আত্মকর্মর্সংস্থানের জন্য ৯০টি সেলাই মেশিন, ১৮৩টি বাইসাইকেল, ১১০টি ভ্যান গাড়ি, ১৪৬ বান্ডিল ঢেউটিন, ৩০টি গরু, দরিদ্র মানুষের শীত নিবারণের জন্য ৫১০০টি কম্বল বিতরণ করে। এছাড়া ব্যাংকগুলো ওই এলাকায় সৌরবিদ্যুৎ স্থাপন, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে কালভাট নির্মাণসহ বহুমুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন।
অনুষ্ঠানে গভর্নর বলেন, বাংলাদেশের মানচিত্রে সদ্য অন্তর্ভুক্ত হওয়া ছিটমহল বাসিন্দাদের জাতীয় অর্থনীতির মূলধারায় সংযুক্ত করতে এবং তাদের সম্ভাবনাময় উদ্যোগসমূহ বিকশিত করার লক্ষ্যে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে ঢেলে সাজানো হচ্ছে। এ লক্ষ্যে কৃষি এসএমইসহ উৎপাদনমুখী ও পরিবেশবান্ধব খাতগুলোতে ঋণের জোগান বাড়িয়ে কৃষক ও হতদরিদ্রদের ১০ টাকায় ব্যাংক হিসাব খোলার সুযোগ দেয়া, বর্গাচাষিদের জন্য বিশেষ ঋণ, আমদানিনির্ভর ফসল চাষে কম সুদে ঋণ, নারী উদ্যোক্তাদের সহজশর্তে কমসুদে ঋণের সুযোগ সৃষ্টি, দ্রুত ও কম খরচে টাকা পাঠানোর জন্য মোবাইল ব্যাংকিং প্রবর্তন করা হয়েছে।
ড. আতিউর রহমান বলেছেন, বর্তমান সরকারের রূপকল্প ২০২১ সামনে রেখে অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়নে ব্যাংকিং খাত নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। দারিদ্র্য নিরসনে ব্যাংকিং সুবিধার বাইরে থাকা দেশের বিশাল জনগোষ্ঠীকে আর্থিক সেবার আওতায় এনে অন্তর্ভুক্তিমূলক কার্যক্রমকে বেগবান করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এজন্য বাংলাদেশ ব্যাংক একটি স্থিতিশীল আর্থিক খাত গড়ে তুলতে ব্যাংকিং সেবায় মানবিক ধারণা প্রসারের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।
গভর্নর বলেন, দেশের বৃহত্তর জনগোষ্ঠীর মধ্যে অসাম্য, বঞ্চনা ও দারিদ্র্য দূরীকরণ এবং ব্যবসায়িক কর্মকা-ের ফলে সৃষ্টি অভিঘাত হ্রাসকরণের লক্ষ্যে ব্যাংকগুলোকে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে সামাজিক দায়বদ্ধতা বা সিএসআর কার্যক্রকে মূল ব্যাংকিং ধারার মধ্যে নিয়ে আসা হয়েছে।
বাংলাদেশ ব্যাংক রংপুরের জেনারেল ম্যানেজার খোরশেদ আলমের সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক মাহফুজুর রহমান, জিএম রবিউল হাসান ও এএফএম আসাদুজ্জামান, জনতা ব্যাংকের এমডি আব্দুস সালাম, মার্কেন্টাইল ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) এম এহসানুল হক, ন্যাশনাল ব্যাংকের ভারপ্রাপ্ত এমডি মো. বদিউল আলম প্রমুখ বক্তৃতা করেন।
এর আগে সিএসআর কার্যক্রম উদ্বোধন উপলক্ষে দহলা খাগড়াবাড়ী ছিটমহলে স্থাপিত দিনব্যাপী ব্যাংক মেলার বিভিন্ন কার্যক্রম পরিদর্শন করেন গভর্নর। এ সময় তিনি ন্যাশনাল ব্যাংকের পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলার ভাউলাগঞ্জ শাখা এবং লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী শাখা উদ্বোধন করেন।

বিভাগ - : অর্থ ও বাণিজ্য, জাতীয়

কোন মন্তব্য নেই

মন্তব্য দিন