• ২০২০ সাল পর্যন্ত কর অব্যাহতি পাচ্ছে গ্রামীণ ব্যাংক
  • বিশেষ তহবিলে বিনিয়োগের সীমা বেঁধে দিল বাংলাদেশ ব্যাংক
  • ব্যাংকিং সেক্টরেও আছে দুষ্টু চক্র : এনবিআর চেয়ারম্যান
  • ৫ দিনব্যাপী ব্যাংকিং মেলা শুরু
  • এসএমই ঋণে সুদ হারের ব্যবধান সিঙ্গেলে রাখার নির্দেশ
  • বাংলাদেশ ব্যাংককে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের চিঠি:
  • বাংলা একাডেমিতে বসছে ব্যাংকিং মেলা
  • দুদক বেসিক ব্যাংকের নথিপত্র সংগ্রহে আদালতে যাবে
  • স্কুল ব্যাংকিংয়ে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণের নির্দেশ
  • সাবেক ছিটমহলবাসীদের স্যানিটেশন সুবিধা প্রদান পূবালী ব্যাংকের

ব্যাংকারদের স্বতন্ত্র বেতন কাঠামোর সুপারিশ ৮ম পে-স্কেলেও

GOVT LOGO
ব্যাংক নিউজ ২৪ ডট কমঃ ২০০৯ সালের সপ্তম পে-স্কেলের মতো অষ্টম পে-স্কেলেও বাংলাদেশ ব্যাংক এবং রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের জন্য স্বতন্ত্র বেতন কাঠামো করার সুপারিশ করা হয়েছে। গত ৭ সেপ্টেম্বর মন্ত্রিসভা অনুমোদিত সরকারি চাকরিজীবীদের অষ্টম জাতীয় বেতন কাঠামোতে এই সুপারিশ রয়েছে। তবে স্বতন্ত্র এই বেতন কাঠামো সরকারি চাকরিজীবীদের ২০ ধাপের (গ্রেড) নতুন বেতন কাঠামোর সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই করতে হবে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, সরকারি কর্মকর্তারা পেনশন পান এবং প্লট বা ফ্ল্যাটও পান। ব্যাংকাররা পেনশন পেলেও প্লট বা ফ্ল্যাট পান না। বিশ্বের অনেক দেশেই ব্যাংকাররা বেশি বেতন পান। তাই ব্যাংকারদের সুবিধা বাড়ানোর জন্য স্বতন্ত্র বেতন কাঠামো প্রয়োজন। তবে গত বছর বাংলাদেশ ব্যাংকের স্বতন্ত্র বেতন কাঠামো অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগে অনুমোদনের জন্য পাঠানো হলেও তা আর অনুমোদন পায়নি।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিনের নেতৃত্বাধীন অষ্টম বেতন ও চাকরি কমিশন বাংলাদেশ ব্যাংকের জন্য স্বতন্ত্র বেতন কাঠামো সুপারিশ করলেও রাষ্ট্রীয় ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের জন্য সরকারি চাকরিজীবীদের মতোই বেতন কাঠামোর সুপারিশ করে। কিন্তু পে-কমিশনের সুপারিশ পর্যালোচনা করে সচিব কমিটি বাংলাদেশ ব্যাংকের মতোই রাষ্ট্রীয় ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের স্বতন্ত্র বেতন কাঠামো সুপারিশ করেছে। মন্ত্রিসভা এই সুপারিশ অনুমোদন করেছে।

রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ব্যাংক, বিশেষায়িত ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের স্বতন্ত্র বেতন কাঠামো করার সুপারিশ করে সচিব কমিটি বলেছে, গ্রেড বা স্কেলের সংখ্যা সরকারি চাকরিজীবীদের মতোই ২০টি হওয়া সমীচীন। পে-কমিশনের বেতন কাঠামোর সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই স্বতন্ত্র বেতন কাঠামো করার জন্য সুপারিশে বলা হয়েছে।

সচিব কমিটি বাংলাদেশ ব্যাংকের জন্য স্বতন্ত্র বেতন কাঠামোর সুপারিশে বলেছে, নিজ পরিচালনা পর্ষদের সম্মতিক্রমে স্বতন্ত্র বেতন কাঠামো প্রণয়নের পর অর্থ বিভাগের অনুমোদন নিয়ে তা বাস্তবায়ন করতে পারবে। গ্রেড বা স্কেলের সংখ্যা সরকারি চাকরিজীবীদের মতোই ২০টি এবং পে-কমিশনের বেতন কাঠামোর সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই করতে হবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকসহ রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ব্যাংকগুলোর জন্য স্বতন্ত্র বেতন কাঠামো নিয়ে সচিব কমিটির সুপারিশ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ সকালের খবরকে বলেন, বিশ্বের অনেক দেশেই ব্যাংক কর্মকর্তাদের বেতন অন্য কর্মকর্তাদের চেয়ে বেশি। আমাদের সরকারি কর্মকর্তারা অনেক সুবিধা পান যা ব্যাংকাররা পান না। সরকারি কর্মকর্তারা পেনশন, প্লট বা ফ্ল্যাটও পান। ব্যাংক কর্মকর্তাদের এসব সুবিধা নেই। তাই আমি মনে করি, ব্যাংকারদের সুবিধা বাড়ানোর জন্য পৃথক বেতন কাঠামো থাকা প্রয়োজন।

মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিনের বেতন ও চাকরি কমিশন রাষ্ট্রীয় ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠান প্রসঙ্গে বলেছে, ব্যাংক ও বিশেষায়িত আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর স্বতন্ত্র বেতন কাঠামোর প্রত্যাশা অনেক দিনের। ব্যাংকিং ব্যবস্থায় বেসরকারি ও বিদেশি ব্যাংকের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকার স্বার্থে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ব্যাংকগুলোর জন্য ব্যাংকিং নীতিমালার আওতায় স্বতন্ত্র বেতন কাঠামোর দাবি রয়েছে। কিন্তু রাষ্ট্রীয় ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের বার্ষিক দায়-দেনা ও সম্পদের হিসাবে দেখা যায়, এসব প্রতিষ্ঠান বড় ধরনের খেলাপি ঋণের জন্য ভারাক্রান্ত। এ ঋণ কোনোদিন আদায় হবে কি না সে সম্বন্ধে সন্দেহের অবকাশ আছে। এসব দায়ভার বাস্তবতার নিরিখে বিশ্লেষণ করলে প্রতিষ্ঠানগুলোর আর্থিক দুর্বলতার চিত্র ফুটে ওঠে। তাই কমিশন পূর্ববর্তী কমিশনের (সপ্তম পে-কমিশন) মতো মনে করে, ব্যাংক ও অন্যান্য আর্থিক প্রতিষ্ঠান যতদিন পর্যন্ত এসব দায়ভার সম্পূর্ণরূপে পুনরুদ্ধার করে আর্থিক সচ্ছলতা ফিরিয়ে আনতে সমর্থ এবং সম্পূর্ণভাবে নিজেদের আয়ে দৃঢ় ভিত্তির ওপর নির্ভরশীল হবে, ততদিন পর্যন্ত এসব প্রতিষ্ঠানের চাকরিজীবীদের বেতন-ভাতাদি সরকারি বেতন কাঠামোর অনুরূপ রাখা প্রয়োজন।

বেতন ও চাকরি কমিশন বাংলাদেশ ব্যাংক সম্পর্কে বলেছে, কেন্দ্রীয় ব্যাংক সরকারের ব্যাংকের হিসাবে সমুদয় আয়-ব্যয়ের হিসাব সংরক্ষণ ছাড়াও দেশের মুদ্রানীতি, ঋণনীতি, বৈদেশিক মুদ্রানীতি ইত্যাদি প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন করে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এসব বিশেষায়িত কর্মকাণ্ড পরিচালনায় এই ব্যাংকের চাকরিজীবীদের বিশেষ জ্ঞান ও দক্ষতা অর্জন করতে হয়। এসব বিষয় বিবেচনায় বাংলাদেশ ব্যাংকের চাকরিজীবীদের যোগ্যতাকে সমুন্নত রাখতে স্বতন্ত্র বেতন কাঠামোর প্রয়োজনীয়তা অস্বীকার করা যায় না। তাই কমিশন বাংলাদেশ ব্যাংকের জন্য স্বতন্ত্র বেতন কাঠামোর বিষয়টি সমর্থন করে। বাংলাদেশ ব্যাংকের জনবল ৫ হাজার ৫৯২ জন।
গত ৭ সেপ্টেম্বর মন্ত্রিসভা অনুমোদিত বেতন কাঠামোতে গ্রেড ভেদে মূল বেতন ৯১ থেকে ১০১ শতাংশ বাড়ার বিষয়টি অনুমোদন করেছে মন্ত্রিসভা। নতুন স্কেলে প্রথম গ্রেডে সর্বোচ্চ মূল বেতন ৭৮ হাজার টাকা (নির্ধারিত)। আর ২০তম গ্রেডে সর্বনিম্ন মূল বেতন ৮ হাজার ২৫০ টাকা। এখন সরকারি চাকরিজীবীরা সর্বোচ্চ ৪০ হাজার ও সর্বনিম্ন ৪ হাজার ১০০ টাকা মূল বেতন পান।

বিভাগ - : অর্থ ও বাণিজ্য

কোন মন্তব্য নেই

মন্তব্য দিন