• ২০২০ সাল পর্যন্ত কর অব্যাহতি পাচ্ছে গ্রামীণ ব্যাংক
  • বিশেষ তহবিলে বিনিয়োগের সীমা বেঁধে দিল বাংলাদেশ ব্যাংক
  • ব্যাংকিং সেক্টরেও আছে দুষ্টু চক্র : এনবিআর চেয়ারম্যান
  • ৫ দিনব্যাপী ব্যাংকিং মেলা শুরু
  • এসএমই ঋণে সুদ হারের ব্যবধান সিঙ্গেলে রাখার নির্দেশ
  • বাংলাদেশ ব্যাংককে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের চিঠি:
  • বাংলা একাডেমিতে বসছে ব্যাংকিং মেলা
  • দুদক বেসিক ব্যাংকের নথিপত্র সংগ্রহে আদালতে যাবে
  • স্কুল ব্যাংকিংয়ে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণের নির্দেশ
  • সাবেক ছিটমহলবাসীদের স্যানিটেশন সুবিধা প্রদান পূবালী ব্যাংকের

সিআইবি রিপোর্ট পাওয়া যাবে সেকেন্ডেই

bangladeshbank
ব্যাংক নিউজ ২৪ ডট কমঃ দেশের সব ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান ক্রেডিট ইনফরমেশনের (সিআইবি) রিপোর্ট নিতে পারবে অনলাইনে ১ সেকেন্ডেেও কম সময়ে। আজ বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ব্যাংক সিআইবি অনলাইন সলিউশনের এ সেবা চালু করেছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এসব তথ্য জানানো হয়।

এতে দেশে কার্যরত সব ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান আগের তুলনায় অনেক কম সময়ে (১ সেকেন্ডের নীচে) সিআইবি রিপোর্ট নিতে সক্ষম হবে। এছাড়া নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় এ সলিউশন তৈরীর ফলে এখন থেকে বিপুল পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা সাশ্রয় হবে এবং বিদেশি ভেন্ডরের ওপর আর নির্ভর করে থাকতে হবে না।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, উক্ত সলিউশন আগের সলিউশনের তুলনায় অনেক বেশি তথ্য সমৃদ্ধ ও ব্যবহারবান্ধব এবং আগের অনেক সীমাবদ্ধতা নতুন সলিউশনে দূর করা হয়েছে। আগে বিদেশি সফটওয়্যার ব্যবহার করে এ কাজ করা হতো।

উল্লেখ, ক্রেডিট ইনফরমেশন ব্যুরো বা সিআইবি (Credit Information Bureau -CIB) হচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংকের একটি বিশেষ বিভাগ। এ বিভাগ ব্যাংক এবং ব্যাংক বহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ঋণ/লিজ গ্রহীতাদের তথ্য-উপাত্ত সংরক্ষণ করে। ঋণ গ্রহণে আগ্রহী কোনো ব্যাক্তি ও প্রতিষ্ঠান ইতিপূর্বে ঋণ/লিজ নিয়েছে কি-না বা নিয়ে থাকলে তার অবস্থা,সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি ঋণ খেলাপি কি-না তা সিআইবির ঋণ প্রতিবেদন থেকে জানা যায়।

১৯৯২ সালে বিশ্বব্যাংকের আর্থিক খাত সংস্কার প্রকল্পের আওতায় সিআইবি প্রতিষ্ঠা করা হয়। এর মূল উদ্দেশ্য খেলাপি ঋণের বিস্তার রোধ করা।

ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো সিআইবি প্রতিবেদনের সহায়তা নিয়ে নতুন ঋণ বিতরণ এবং ঋণ পুনঃতফসিলীকরণের ক্ষেত্রে ঝুঁকির মাত্রা কমিয়ে আনতে পারে।

প্রতিটি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে প্রত্যেক মাসে বিতরণকৃত ঋণ/লিজের তথ্য সিআইবিতে পাঠাতে হয়। কোনো ঋণ বা লিজ হিসাব পুনঃতফসিল করা হলেও তার তথ্য সিআইবিতে পাঠাতে বাধ্যতামূলক। এমনকি কোনো ঋণ বা লিজ হিসাব অবলোপন করা হলেও তার তথ্য সিআইবিতে রিপোর্ট করতে হয়।

বিভাগ - : অর্থ ও বাণিজ্য, ব্যাংক

কোন মন্তব্য নেই

মন্তব্য দিন