• স্টাইল ক্রেইজ (style craze) ফ্যাশন হাউজে নতুন ঈদ কালেকশন
  • ২০২০ সাল পর্যন্ত কর অব্যাহতি পাচ্ছে গ্রামীণ ব্যাংক
  • বিশেষ তহবিলে বিনিয়োগের সীমা বেঁধে দিল বাংলাদেশ ব্যাংক
  • ব্যাংকিং সেক্টরেও আছে দুষ্টু চক্র : এনবিআর চেয়ারম্যান
  • ৫ দিনব্যাপী ব্যাংকিং মেলা শুরু
  • এসএমই ঋণে সুদ হারের ব্যবধান সিঙ্গেলে রাখার নির্দেশ
  • বাংলাদেশ ব্যাংককে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের চিঠি:
  • বাংলা একাডেমিতে বসছে ব্যাংকিং মেলা
  • দুদক বেসিক ব্যাংকের নথিপত্র সংগ্রহে আদালতে যাবে
  • স্কুল ব্যাংকিংয়ে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণের নির্দেশ

৭০ বছরের কুমারী তিনি


নিজের ব্যক্তিগত জীবনের চেয়ে সব সময় ক্যারিয়ারকেই বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী পাম শাও। কোন পুরুষের সঙ্গে সময় কাটানোর সময় তিনি নিজেকে কখনোই দেননি। তাই ৭০ বছর বয়স হলেও তিনি নিজের কুমারিত্ব বজায় রেখেছেন। ক্যাবারে গায়িকা এবার পছন্দের ব্যক্তির কাছে নিজের কুমারিত্ব বিসর্জন দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তবে এজন্য পাত্রকে হতে হবে লম্বা, কালো এবং সুদর্শন ধনবান পুরুষ। ক্যাবারে তার নাম ‘দি সেক্সশনাল পাম’ হলেও অবসর গ্রহণকারী পামইবয়ের পূর্বে যৌনতায় বিশ্বাস করেন না। জীবনের এতগুলো দিন কৌমার্য বজায় রাখার পর গ্রেটার ম্যানচেস্টারের পাম এবার উপযুক্ত একজন সঙ্গীর সন্ধানে নেমেছেন। ডেইলি সানকে তিনি বলেছেন, এখনও আমার প্রত্যাশা খুব বেশি। আমি এখনও একজন লম্বা, কালো এবং সুদর্শন ধনবান পাত্র আশা করছি। আমার এখন মনে হচ্ছে, বিয়ের জন্য আমি এখন তৈরি এবং একজন পুরুষের সঙ্গে আমি সময় কাটাতে পারি। কোন কিছুর জন্যই মানুষ কখনও খুব বুড়িয়ে যায় না। যৌবনের স্বর্ণালী সময়ে বৃটেনের ক্লাব জগতে পাম যৌনাবেদনময়ীর পরিচয় নিয়ে টম জোনস, এঞ্জলবার্ট হ্যাম্পারডিঞ্চ এবং রজার ম্যুরের মতো তারকাদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ ছিলেন। কিন্তু তিনি কখনোই কারও সঙ্গে বিছানায় যাননি। তিনি নিজের সম্পর্কে বলেছেন, মানুষ মঞ্চে আমার বাহ্যিক খোলামেলা পোশাক দেখে মনে করতো আমাকে খুব সহজেই কাছে পাওয়া যাবে।
কিন্তু আমি কখনও কোন পুরুষের সঙ্গে একটু চুমো ছাড়া আর কিছুই করিনি। আমার বেশ আবেদনময় নাম ছিল। পোশাকও পরতাম বেশ খেলামেলা। তবে এসবই করেছি আমার পেশার খাতিরে। পাম বলেছেন, লোকজন যখন শুনতো আমার বয়সের কথা এবং এই বয়সেও আমি কেবল সংগীতের জন্য বিয়েতে জড়াইনি, তখন তারা বেশ হবাক হন। এই বয়সেও পাম নিজেকে যথেষ্ট কর্মক্ষম মনে করেন। এ জন্য তিনি তার কুমারিত্বকেই কৃতিত্ব দিয়েছেন। ১৯৯৫ সালে ৯৭ বছর বয়সে তার মা লিলিয়ান মারা যাওয়ার পূর্ব পর্যন্ত তিনি তার সঙ্গেই থাকতেন। তবে দীর্ঘ জীবনে এক বার একব্যক্তি তার প্রেমে পড়েছিলেন। তবে তিনি যখন বুঝতে পারলেন আসলে ওই ব্যক্তি আসলে তার স্বপ্নের পুরুষ নন তখন তাদের সম্পর্কে ইতি ঘটে।

বিভাগ - : তথ্য ও প্রযুক্তি

কোন মন্তব্য নেই

মন্তব্য দিন